মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

খেলাধুলা ও বিনোদন

কাউনিয়ার তিস্তা নদীতে তিস্তা রেলওয়ে ব্রিজের নীচে প্রতি বছরই নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় । স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে ছেলে-মেয়েদের সাঁতার প্রতিযোগিতা ছাড়াও, সাঁতার কাটা এখানকার মানুষের অভ্যাস ও খেলা উভয়ই এই সাঁতাররের সংগে আছে জল কেলী, ডুব দেওয়া খেলা । হাডুডু, বউচি,গোল্লাছুট গ্রাম-গঞ্জের একটি প্রিয় খেলা । অনেক এলাকায় এসব খেলার প্রতিযোগিতাও অনুষ্ঠিত হয় ।লুডু,পাসা,লুকোচুরি, দাবা, টুঝাঁৎ, দাড়িয়াবান্ধা, বাঘ বকরি, বাইশ কোপ তেইশ কোপ, তুলিমতোল হলো এখানকার ছোট বড় সব ছেলে ও মেয়েদের প্রিয় খেলা । ছেলে ও মেয়েরা মার্বেল খেলতেও ভালবাসে । মহরম ও পুজা পার্বনের সময় এখানে লাঠি খেলা, বার্শা খেলা হতো, এসব এখন লুপ্ত প্রায়। তাস খেলা, কেরামবোর্ড খেলা, অনেক ছেলে থেকে বুড়ো, ছেলে ও মেয়েরাও করে । স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে নানা খেলা প্রচলিত রয়েছে । সে গুলি হলো -লংজাম্প, হাইজাম্প, বস্তা দৌড়, মোরা দৌড়, বিস্কুট দৌড়, তিন পায়ে দৌড়, মোমবাতির দৌড়, সুই সুতার দৌড়, চেয়ার খেলা, বল পাচাড়, বালিশ পাচাড়, রাশি টানাটানি, বাশেঁ উঠা, সাঁতার কাটা, ভলিবল, হ্যান্ডবল, ফুটবল, ব্যাড মিন্টন খেলা ইত্যাদি । প্রতিষ্ঠান পর্যায় ছাড়াও অনেক সময় এসব নিয়ে প্রতিযোগিতাও চলে । এককালে এলাকার সর্বত্র ফুটবল খেলা অতি জনড়্রিয় খেলা হিসাবে প্রচলিত থাকলেও বর্তমানে এর স্থা দখল করে নিয়েছে ক্রিকেট খেলা । এখানকার মাঠ ঘাটে, রাস্তার পথে বাড়ী আঙ্গিনায়, ক্ষেতের জমিতে, ছোট বড় সবাই মেতে আছে এই ক্রিকেট নিয়ে ।

সব কিছু ছাড়িয়ে কাউনিয়া উপজেলার এইসব দেশী ও বিদেশী খেলা বাদে অতীত কাল থেকে এখনও ফুটবল খেলাই সবচেয়ে জনপ্রিয় ও ব্যাপক খেলা হিসাবে প্রচলিত আছে । অতীতে অনেক ফুটবল খেলোয়াড় নাম করা ছিলেন, কিন্তু বর্তমানের ন্যায় জাতীয় সংস্থা ও সুযোগ না থাকায় তারা জাতীয় পর্যায়ে নাম করা ছিলেন, কিন্তু বর্তমানের ন্যায় জাতীয় সংস্থা ও সুযোগ না থাকায় তারা জাতীয় পর্যয়ে নাম করতে পারেননি । বর্তমানে কাউনিয়া মোফাজ্জল হোসেনের পুত্র মোসাব্বের হোসেন ঢাকায় স্থায়ী বাসিন্দা ও ব্যবসায়ী হওয়ায় সুবাদে ঢাকায় জাতীয় ফুটবল লীগের নাম করা খেলোয়াড় হিসাবে প্রতিষ্ঠা ও সুনাম অর্জন করেছেন ।

ছবি